হাজার হাজার পোস্ট খালি তবুও নিয়োগ পাচ্ছে না, সুপারিশ প্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগন

প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২১
বাংলাদেশের কৃষিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে ২০১৮ সালে বিপুল সংখ্যক  উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার শূন্য পদ পূরনের জন্য  নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
পরবর্তী সময়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদে অত্যন্ত স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তিন ধাপে
( প্রিলি,লিখিত ও মৌখিক)
 পরীক্ষায় উত্তীর্ণ যোগ্য প্রার্থীদের নিয়োগের সুপারিশ করেছিল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
 সম্পন্ন হয়েছে পুলিশ ভেরিফিকেশন।পুলিশ ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হওয়ার পর দেড় বছর পার হলেও এখনো সুপারিশকৃত ১৬৫০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। সুপারিশ প্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগন মানবেতর জীবনযাপন করছেন। পারিবারিক ও সামাজিকভাবে হচ্ছেন হেয় প্রতিপন্ন। অনেকেই আছেন যারা পূর্বে অন্যান্য চাকরি করতেন কিন্তু  উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা হিসেবে মনোনীত হওয়ার পর সেগুলো ছেড়ে দিয়েছেন। নিয়োগ না হওয়ার ফলে তারা সরকারি চাকরি পেয়েও এক ধরনের বেকার জীবন পার করছেন।
 বিশেষ করে, করোনার প্রকোপে তারা ও তাদের পরিবার আরো দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।অনেকের বাবা মা এই করোনায় পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। দারিদ্রের কষাঘাত প্রবলভাবে আঁকড়ে ধরছে তাদের।
সুপারিশ প্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা
শাহপরান জানান, সারা বাংলাদেশের হাজারেরও বেশি উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদ খালি রয়েছে।অনেক উপসহকারী তিন চারটি ব্লক অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে পালন করছেন।তাদেরও যেমন চাপ পড়ছে, তেমনি কৃষকরাও সঠিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।  এই উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা সরকারের সকল কৃষি বিষয়ক পরিকল্পনা সম্মুখ সারিতে থেকে বাস্তবায়ন করে থাকে, এজন্য উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের কৃষক বন্ধুও বলা হয়ে থাকে ।তারাই মাঠ পর্যায়ে সরাসরি কৃষক কে নানা বিষয়ে পরামর্শ, সহযোগিতা দিয়ে থাকে।আমরাও ১৬৫০ জন সম্পুর্ণ প্রস্তুত রয়েছি কৃষি এবং কৃষকের উন্নয়নে কাজ করার জন্য।
নিয়োগ প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্য সুপারিশ প্রাপ্তরা মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে দফায় দফায় স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন। তবুও কোন এক অদৃশ্য কারনে নিয়োগটা আটকে রয়েছে।
 করোনাকালীন সময়ে বাংলাদেশের কৃষিকে মাঠ পর্যায় থেকে আরো সচল করতে ও সুপারিশপ্রাপ্ত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি দিয়ে, অতিদ্রুত তাদের নিয়োগ নিশ্চিত করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং মাননীয় কৃষি মন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ভুক্তভোগী ১৬৫০ জন সুপারিশ প্রাপ্ত  উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগন।
Print Friendly, PDF & Email