নাচোলে উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখছে ফারুক

প্রকাশিত: ১:১৯ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২১
চাঁপাইনবাবগঞ্জ  জেলার নাচোল উপজেলার নেজামপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুরে তরুন উদ্যোক্তা  ফারুক(৩৭)২০বিঘা জমিতে গবাদীপশুর খাবারের জন্য ঘাষ লাগিয়ে নিজের ক্রয়করা প্রায় ৩বিঘা জমিতে গড়ে তুলেছেন গবাদীপশুর খামার।
 খামারে শাহীওয়াল ও জার্সি জাতের ৪৫টি গাভী, ৪২টি ষাঁড় গরু, ২৫টি বাছুর, ১১টি ভেড়া ও ১হাজার ক্যাম্বেল জাতের হাঁস পালন করছেন। লক্ষীপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে স্নাতক পাস তরুন ফারুকের চোখে সফল উদ্যোক্তা হবার স্বপ্ন। অদম্য মনোবল নিয়ে এগিয়ে যাবার প্রত্যয়ে উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা, বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী ব্যাংকের কর্মকর্তাগনের সাথে পরামর্শ করে সার্বক্ষনিক দেখাশুনা করছেন তার যত্নে লালিত পালিত গাভী, ষাড় গরু, বাছুর ও হাঁসগুলি।
 প্রাণী সম্পদ অফিসের পরামর্শে সুসম খাবার দিচ্ছেন ও যতœ নিচ্ছে ৭জন কর্মচারী। স্বপ্নচারী ফারুক তার ফার্মে বসে জানান, তিনি চাকুরী করতে চাননা, চাকুরী দিতে চান। তার ফার্মে চাকুরী দিয়ে নাচোল উপজেলার বেকারত্ব দুর করতে চান। সরকারী-বেসরকারী ব্যংক ও সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে সে নাচোলে আদর্শ ও তরুন উদ্যোক্তা হতে পারবেন।
মংলা সমুদ্র বন্দরে সিএনএফ এজেন্ট হিসেবে অনেক দিন যাবত ব্যবসা করছেন। বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে প্রাণী সম্পদের ফার্ম গড়ে তুলে অনেকেই সফল হয়েছেন, এমন প্রচারনা দেখে তিনি অনুপানিত হয়ে বরেন্দ্র অঞ্চলের নাচোল উপজেলার লক্ষীপুরে নিজের কেনা ২বিঘা জমিতে গড়ে তুলেছেন গবাদীপশুর মেসার্স ফাহমিদা এগ্রো এন্ড ডেইরী ফার্ম।
বাড়ির পাশের খামারে ১হাজার ক্যাম্বেল হাঁস পালন করছেন। স্বপ্নচারী ফারুক আশা করছেন সরকারী উৎসাহ ও অনুপ্রেরনা পেলে তার মত অনেকেই প্রাণী সম্পদের ফার্ম গড়ে তুলে দেশের অর্থণীতিতে অবদান রাখতে পারবে। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিহা সুলতানা জানান, সরকারের পাশাপাশি বে-সরকারী তরুন উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসতে হবে।
তরুন উদ্যোক্তা ফারুককে সরকারী-বে-সরকারীভাবে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। উপজেলা সহকারী প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সারমিন সুলতানা জানান, ফারুকের মত তরুন উদ্যোক্তাকে সরকারী-বেসরকারী সহায়তা প্রদান করলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ভিশন-২০৪১ সফল হবে বলে তিনি আশা করেন।
Print Friendly, PDF & Email