ফরিদপুরে নৌকার চরম ভরাডুবি, ১০ ইউপির ১টিতে  নৌকা ৯টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী

প্রকাশিত: ১২:০২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২১

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার দশটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবি হয়েছে। রোববার অনুষ্ঠিত ৪র্থ দফায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বোয়ালমারী উপজেলার ১০ ইউনিয়নের মধ্যে একমাত্র শেখর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী কামাল আহমেদ চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছেন। বাকি ইউনিয়নগুলোর মধ্যে পাঁচ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, তিনটিতে বিএনপি সমর্থিত, একটিতে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।

দশ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিতরা হলেন- শেখর ইউনিয়নে কামাল আহমেদ (নৌকা), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী বোয়ালমারী সদর ইউনিয়নে মো. আব্দুল হক (মোটরসাইকেল), চতুল ইউনিয়নে মো. রফিকুল ইসলাম (চশমা), ঘোষপুর ইউনিয়নে মোহাম্মদ ইমরান হোসেন নবাব (আনারস), পরমেশ্বরদী ইউনিয়নে মান্নান মাতুব্বর (ঘোড়া), দাদপুর ইউনিয়নে মো. মোশাররফ হোসেন (ঘোড়া), ময়না ইউপিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আব্দুল হক মৃধা (হাত পাখা), গুনবহায় বিএনপি সমর্থিত অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম (চশমা), সাতৈর বিএনপি সমর্থিত মো. রাফিউল আলম মিন্টু (মোটরসাইকেল), রূপাপাত ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র মিজানুর রহমান মোল্যা ওরফে সোনা মিয়া (আনারস) প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

এদিকে, নৌকার প্রার্থীদের ভরাডুবির কারণ সঠিক প্রার্থী বাছাইকেই দায়ী করছেন রাজনৈতিক সচেতন মহলসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তাদের দাবি, ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের যাচাই-বাছাই ও জনপ্রিয়তা না দেখে মনোনয়ন দেওয়ার কারণে এমন ভরাডুবি হয়েছে। তৃণমূল থেকে যোগ্য প্রার্থী প্রাধান্য না দিয়ে নানাভাবে তদবির করে অযোগ্য প্রার্থীদের নাম মনোনয়ন বোর্ডে পাঠানো হয়। এই কারণেই আওয়ামী লীগের যোগ্য প্রার্থীরা মনোনয়নবঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী হয়ে নির্বাচন করতে বাধ্য হন। আর এই বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাছে নৌকার অযোগ্য মাঝিরা চরমভাবে পরাজিত হয়েছে।

বোয়ালমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পিকুল মৃধা যুগান্তরকে বলেন, আমরা ১০ ইউনিয়নের ৬৫ প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছিলাম। এদের মধ্যে কারা প্রথম সারির এবং যোগ্য তা তালিকায় ছিল।

Print Friendly, PDF & Email