হাতীবান্ধায় সার্কাসের নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য

প্রকাশিত: ৬:৪১ অপরাহ্ণ, জুন ৬, ২০২২

পরিমল বসুনিয়া, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা উপজেলার ডাকালীবান্ধায় দি সাধনা লায়ন্স সার্কাসের নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য পরিচালনার অভিযোগ উঠেছে সার্কাস পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে।

জানা যায়, গত ২৮ মে হাতিবান্ধার ডাকালীবান্ধা বাজার সংলগ্ন মাঠে দি সাধনা লায়ন্স সার্কাস চালানোর অনুমতি দেয় লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়। খয়বর মেম্বারের নেতৃত্বে দি সাধনা লায়ন্স সার্কাস চালু হয়। শুরু থেকে সার্কাসটি খেলা দেখানোর কথা থাকলেও তারা দিনে তিনটি শোতে দেখাচ্ছেন অশ্লীল নৃত্য। রাত যত গভির হয় সার্কাসে অশ্লীলতা তত বেরে যায়। এতে উঠতি বয়সি কমলমতি শিশুদের মনে পড়ছে বিরুপ প্রভাব। দি সাধনা লায়ন সার্কাস অনুমতির সময় লোকালয় থেকে দুরে চালানোর কথা থাকলেও ডাকালীবান্ধা বাজারের পাশেই স্টেজ করে চলছে সার্কাস। পাশেই রয়েছে মসজিদ আজানের সময়েও তারা চালাচ্ছে সার্কাস।

এতে স্থানীয় ধর্মপ্রান মুসলমানদের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। ডাকালীবান্ধা এলাকার এসএসসি পরিক্ষার্থী আওলাদ হোসেন জানান, আগামী ১৯ জুন আমার এসএসসি পরিক্ষা। আমার মত প্রায় ২০ জন পরিক্ষার্থী আছে এই এলাকায়। আমরা সার্কাসের কারনে পড়াশুনা করতে পারছি না। রাতে যখনি পড়তে বসি তখনি শুরু হয় সার্কাসের গান বাজনা। তাই আমরা প্রশাসনের কাছে সার্কাস বন্ধের আবেদন জানাই। একই এলাকার ডাঃ এনামুল বলেন, আমরা নামাজ পড়তে পারি না, বিকট শব্দে নামাজ পড়তে সমস্যা হয়, আবার আজানের সময়ও তারা গানবাজনা বন্ধ করে না। এখানে রাতে পতিতাদের আসর বসে। জেলার বিভন্ন এলাকা থেকে মানুষ এসে নর্তকীদের নাচায়। এখানে দুইবার মারামারিও হয়েছে। এখনি যদি সার্কাস বন্ধ না করা হয় তাহলে যে কোন মূহুর্তে বড় ধরনের ঘটনা ঘটে যেতে পারে। সার্কাস পরিচালনা কমিটির সদস্য খয়বর মেম্বার বলেন, ডিসি সাহেব ও আমাদের এলাকার এমপি সার্কাস চালানোর অনুমতি দিয়েছে।

হাতিবন্ধা থানার ওসি সকাল বিকাল খবর নেন। তাই সার্কাস চলছে। সার্কাসতো রাত দশটা পর্যন্ত চলার কথা তাহলে রাত ১২টা পর্যন্ত কেন চালান? এমন প্রশ্নের কোন উত্তর তিনি দিতে পারেননি।

হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল আলম বলেন, কোন ধরনের অশ্লীলতা মেনে নেওয়া হবে না। প্রয়োজনে সার্কাস বন্ধ করে দেয়া হবে। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, অশ্লীল কোন গান বাজনার অনুমতি দেয়া হয়নি। আমি এখনেই কমিটির সঙ্গে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

Print Friendly, PDF & Email