কালীগঞ্জে সম্মেলনকে ঘিরে চাঙ্গা ছাত্রলীগ

প্রকাশিত: ৬:৩৯ অপরাহ্ণ, জুন ১৯, ২০২২

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার সম্মেলন বা কমিটিকে ঘিরে  ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা  দেখা দিয়েছে । সম্মেলন বা কমিটি গঠনের নির্দিষ্ট কোন তারিখ ঘোষণা  না করা হলেও কমিটি বা সম্মেলনের উদ্দেশ‌্যে  লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ঘোষিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে  সভাপতি ও সম্পাদক পদ প্রত্যাশী নেতাকর্মীদের নিকট থেকে জীবনবৃত্তান্ত আহ্বান করা হয়েছে। এ প্রেস বিজ্ঞপ্তি ঘোষণার পর থেকে নড়েচড়ে বসেছেন দীর্ঘদিন থেকে ছাত্রলীগের  সম্মেলন প্রত্যাশী  নেতাকর্মীরা। সঠিক সময়ে সম্মেলন অনুষ্ঠিত না হওয়ার কারণে কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ  গ্রুপে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। তবে ছাত্রলীগের আসন্ন সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রান চাঞ্চল্যতা ফিরে এসেছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের আসন্ন সম্মেলনে  নেতৃত্বের যোগ্যতায় এগিয়ে রয়েছেন   জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদ মাহবুব মেলভিন ও  উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক  তৌকির আহমেদ হৃদয়। আসন্ন সম্মেলনে  সভাপতির পদ প্রত্যাশী হিসেবে জীবন বৃত্তান্ত জমা দিবেন বলে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে এরা হলেন- সাজিদ  মাহবুব মেলভিন , তৌকির আহমেদ হৃদয়, শরিফুল ইসলাম, বিভূতি ভূষণ সবুজ এবং সাধারণ সম্পাদক পদে রওনক রশিদ, সিয়াম উল ইসলাম মিম,ইসবাহ্-উল-মওলা সূর্য, নাজমুল হাসান প্রমুখ।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন সাবেক ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ নেতাদের মতে সাজিদ মাহবুব মেলভিন ও  তৌকির আহমেদ হৃদয় কে  উপজেলা ছাত্রলীগের   সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হলে  উক্ত কমিটি কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের ইতিহাসে সবচেয়ে শক্তিশালী কমিটি হবে বলে  অভিমত ব্যক্ত করেছেন। অপরদিকে  অনেকের ধারণা  স্থানীয় রাজনীতির প্রেক্ষাপট ও গ্রুপিং বিবেচনায় কারা আসবে ছাত্রলীগের  নেতৃত্বে তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকে।

লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের  সভাপতি  রাশেদ জামান বিলাস মুঠোফোনে জানান, কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা জেলা ছাত্রলীগের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ।  তবে অবশ্যই  কমিটি ঘোষণার ক্ষেত্রে  মাননীয় মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি মহোদয় ও  কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশনা অনুসরণ করা হবে।  তিনি আরো বলেন, এখন পর্যন্ত সাত-আটজনের সিবি আমাদের কাছে এসে জমা হয়েছে। তিনি আরো জানিয়েছেন  কমিটির না হওয়ার কোনো সুযোগ নেই,  কমিটি  ঘোষণা করা হবে।  তবে অবশ্যই সেই কমিটি হবে মাদকমুক্ত।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ( ভারপ্রাপ্ত) মিজানুর রহমান মিজু বলেন, ছাত্রলীগের কোনো গ্রুপিং নেই তবে নেতৃত্বের প্রতিযোগীতা রয়েছে। এই নেতৃত্বের প্রতিযোগিতায় যারা এগিয়ে থাকবে তারাই আগামী দিনে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিবে। তবে কোন প্রকার মাদকসেবী,  মাদক ব্যবসায়ী বা  মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছে এমন কোন ব্যক্তি  কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও তার সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃত্বে আসতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email